গতকাল এই ছবিটা দেখলাম আমাদের সময়ের জাসদ ছাত্রলীগ নেতা শফি ভাই ফেবুতে পোষ্ট দিয়ে তাকে মুক্ত – পিনাকী ভট্টাচার্য

গতকাল এই ছবিটা দেখলাম আমাদের সময়ের জাসদ ছাত্রলীগ নেতা শফি ভাই ফেবুতে পোষ্ট দিয়ে তাকে মুক্তিযোদ্ধা নাদের গুণ্ডা বলে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছেন।

মুক্তিযোদ্ধাদের এইভাবে ফ্যাশন করে চুল কেটে সুবেশ নিয়ে নিজ বাড়ির ছাদে অত্যাধুনিক একে ৪৭ রাইফেল নিয়ে পোজ মেরে ছবি তোলার সময় ছিলোনা বা বাস্তবতা ছিলোনা।

তাদের সামান্য অস্ত্র ছিলো, খাবার জুটতো না, শেইভ করতে বা চুল কাটাতে পারতেন না। আর মূলত তারা ছিলেন সাধারণ মানুষের ছেলে; ইপি আর বেঙ্গল রেজিমেন্টের সিপাহি বা পুলিশের কন্সটেবল।

মধ্যবিত্তের সন্তানেরা অতি অল্প পরিমাণে প্রকৃত যুদ্ধে অংশ নিয়েছে। আপনি তারেক মাসুদের মুক্তির গানে সেই ধারণা পাবেন। মধ্যবিত্তের ছেলেরা ট্রাক নিয়ে গান গেয়ে উদ্দীপ্ত করছে আর কৃষকের ছেলেরা মাঠে অস্ত্র হাতে লড়াই করছে।

১৬ ডিসেম্বরের পরে পুরো মুক্তিযুদ্ধের সময়ে দুধভাত খাওয়া মায়ের আঁচলের তলে পালিয়ে থাকা তেল চকচকে তরুণ যুবকেরা এইভাবে পাক সেনাদের আর রাজাকারদের ফেলে যাওয়া অত্যাধুনিক অস্ত্র হাতে নিয়ে পোজ মেরে একটা ছবি তুলতো বাঁধিয়ে রাখার জন্য। এদের বলা হতো সিক্সটিন্থ ডিভিশন।

এই ছবিটা তেমনই একটা সিক্সটিন্থ ডিভিশনের মুক্তিযোদ্ধার ছবি। এরা আসল লড়াকুদের হটিয়ে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে গড়ে ওঠা একটা রাষ্ট্রের দখল নিয়েছিলো।

PB/FS/4/26AUG2019



Pinaki Bhattacharya | উৎস | তারিখ ও সময়: 2019-08-26 15:28:05