Wasim Iftekhar কে পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি বিএনপিপন্থী একজন অনলাইন এক্টিভ – কদরউদ্দিন শিশির

Wasim Iftekhar কে পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি বিএনপিপন্থী একজন অনলাইন এক্টিভিস্ট। তার ঘনিষ্টজনেরা বলছেন গতকাল তাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

সকাল থেকে এ নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে কথা বলছেন। কথা বলাদের অনেকে বেশ পরিচিতজন অনলাইনে। তাদের বন্ধু ও ফলোয়ার তালিকায় শত শত সাংবাদিক থাকার কথা। হয়তো আছেনও। তারা জানেন বিষয়টি।

কিন্তু এত সাংবাদিক বিষয়টি জানলেও কোনো সংবাদমাধ্যমে ওয়াসিমের নিখোঁজ হওয়ার কোনো খবর নেই, আমি খুঁজে পাইনি। এমন নিখোঁজ বা গুমের ঘটনায়, তাও বিশ্ব গুম দিবসে, সংবাদমাধ্যমের আগ্রহ নেই কেন?

আমাদেরকে একটা জিনিস বুঝতে হবে। সাংবাদিকতার একটা মৌলিক নিয়ম হলো আমাদের দৈনন্দিন জীবনের অতি ‘স্বাভাবিক’ বা নিয়মিত ঘটমান ঘটনাগুলো নিয়ে সংবাদ পরিবেশন হয় না। সূর্য পূর্ব দিকে উঠেছে এইটা কখনো পত্রিকায় দেখবেন না। সংবাদ হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করতে হলে কোনো কিছুতে একটু হলেও ভিন্নতা, অস্বাভাবিকতা, নিয়মবিরুদ্ধতা, নতুনত্ব এরকমটা থাকতে হয়।

ওয়াসিমের মতো যুবকের, যিনি বিরোধী মতকে ধারণ করবেন, তার হঠাৎ একদিন নাই হয়ে যাওয়ার ঘটনাকে সাংবাদিকরা আমাদের দৈনন্দিন জীবনের অতি স্বাভাবিক নিয়ম হিসেবে দেখছেন। এবং এই দেখাতে কোনো ভুল নেই। ফলে এই ঘটনা সংবাদ হিসেবে কোয়ালিফাই করতে পারছে না।

এটি আসলে বাস্তবতা। মেনে নিতে হবে। সাংবাদিকরা তো চাইলেই বাস্তবতা চেঞ্জ করতে পারবেন না। এটা বস্তুনিষ্ঠতার লঙ্ঘন। সাংবাদিকের কাজ বাস্তবতাকে তুলে ধরা, চেঞ্জ করা নয়। নিয়ম নীতি বিসর্জন দিয়ে কোনো তুচ্ছ ও দৈনন্দিন স্বাভাবিক ঘটনাকে সংবাদ হিসেবে প্রচার করতে পারেন না তারা। সবাই নীতি বিসর্জন দিতে পারে, তাতে খুব বেশি খারাপ প্রভাব তৈরি হয় না। কিন্তু সাংবাদিকরা নীতি বিসর্জন দিলে সমাজে তার নেতিবাচক প্রভাব অনেক বেশি পড়ে।

Qadaruddin Shishir | উৎস | তারিখ ও সময়: 2018-08-30 21:30:57