উগান্ডার রাণী দিতে পছন্দ করেন। অথচ উগান্ডার জনগণ অকৃতজ্ঞ। তারা দিতে চা – আমান আবদুহু

উগান্ডার রাণী দিতে পছন্দ করেন। অথচ উগান্ডার জনগণ অকৃতজ্ঞ। তারা দিতে চায় না। রাণী যখন দেন, তখন তারা রাণীর সমালোচনা করে। কিন্তু দেয়া ছাড়া কি বন্ধুত্ব হয়?

তাই রাণী তার বাপের মালিকানাধীন দেশের নদীর পানি, প্রাকৃতিক সম্পদ গ্যাস, নিরাপত্তা নজরদারীর ঠিকাদারী কিংবা সমুদ্রবন্দর, সবকিছু বন্ধুর হাতে তুলে দেন। স্বাধীনতাবিরোধী চক্র নানা কথাবার্তা বলে। তবে সমস্যা নেই। দেশের মানুষ স্বাধীনতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে রাণীর সাথে আছে। তারা দেয়ার পক্ষে আছে।

রাণী দেশে ফেরার পর বাঘা বাঘা সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে দেয়ানেয়ার হিসাব কষবেন। সেই সংবাদ সম্মেলনে তিনি মুখ টিপে বলবেন, কুছ তো মিলাহ। ঠাকুর শান্তি পুরস্কার মিলাহ।

এই বলে নিজের রসিকতায় নিজেই মুগ্ধ হয়ে তিনি হালকা দুলে দুলে হাসবেন। তখন অঙ্গরাজ্যের বাঘা বাঘা সাংবাদিকরাও হাসবেন। আপা হাসলে সাংবাদিকদেরকেও হাসতে হয়। না হলে স্বাধীনতা বিরোধীতা হয়। তখন 'যেখানেই থাকুন ভালো থাকুন' এর জগত থেকে প্রয়াত সম্পাদক গোলাম সরওয়ারও ঢুলু ঢুলু চোখে দুলে দুলে হাসবেন।

কুছ তো মিলাহ।

Aman Abduhu | উৎস | তারিখ ও সময়: 2019-10-06 06:36:04