আগের যুগে যখন রাজা-বাদশারা গুণের কদর করতো তখন বিভিন্ন পেশা ও শ্রেণীর মানুষদের ম – আমান আবদুহু

আগের যুগে যখন রাজা-বাদশারা গুণের কদর করতো তখন বিভিন্ন পেশা ও শ্রেণীর মানুষদের মধ্যে সেরা ব্যক্তিটাকে রাষ্ট্রীয় প্রতিনিধি হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হতো। এলাকায় অনেক জোকার থাকলেও রাজদরবারে রাষ্ট্রীয় ভাঁড় হিসেবে সেরা মানুষটি স্বীকৃতি পেতেন। রাজ্যে কবির সংখ্যা কাকের চেয়ে বেশি হতে পারে কিন্তু যোগ্যতার বলে সভাকবি হতেন একজনই।

এইসব পেশাগত শ্রেষ্ঠত্বের প্রতিনিধিদেরকে অনেক সময় আবার দরবারী পদবী দিয়ে না ডেকে জনগণের সাথেও সম্পৃক্ত করা হতো, অর্থ্যাৎ হালকা গণতন্ত্র আর কি। যেমন রাজ্যে যিনি সেরা কুতুব থাকতেন, কুতুব অর্থ হলো জ্ঞানী, তাকে অনেক সময় ডাকা হতো শহরকুতুব। সবচেয়ে সেরা অভিনেত্রী/মডেল/তারকা ওর্থ্যাত ইউ নো হোয়াট তাকে স্বীকৃতি দেয়া হতো নগরবধুঁ হিসেবে।

যাইহোক কথা হলো, বাংলাদেশে এতোদিন রাষ্ট্রীয়-ধ্বজ পদবীর জন্য একজনই যোগ্য দাবীদার ছিলো, শিক্ষামন্ত্রী নাহিদের মেয়ে নন্দিতা ইসলামের প্রাক্তণ স্বামী আইমোরোন সরকার। কিন্তু আমরা সম্প্রতি জানতে পারলাম এই পদের জন্য এখন স্ট্রং কনটেন্ডার হিসেবে আছে শমী কায়সারের প্রাক্তণ স্বামী কুচিন্তা ফাউন্ডেশনের মুক্তিযোদ্ধা ভুটকা আরাফাত।

সুতরাং দলে দলে ভুট দিয়ে এই দু’জনের মধ্য থেকে আপনার পছন্দের প্রার্থীকে ‘নগর-ধ্বজ’ পদে জয়যুক্ত করুন। গুণীজনের গুণের কদর করুন।

উৎস । তারিখ: 2020-10-10 04:52:39

8 thoughts on “আগের যুগে যখন রাজা-বাদশারা গুণের কদর করতো তখন বিভিন্ন পেশা ও শ্রেণীর মানুষদের ম – আমান আবদুহু”

  1. তো কি লাভ হইলো। নতুন যেইডা বিয়া করছে সেইটাও তো আরাফাতের বাপের বয়সী। বাচ্চা হবেনা………

  2. তৃতীয় আরেকজন যুক্ত হয়েছে, ন্যাশনাল গামাই, রাজাকার নাতি। তথ্যসূত্র- ডেভিড বার্গম্যান

Comments are closed.