রসূলের সমান ট্রলিং আমাদের মধ্যে কেউ শিকার হয় নাই – ফাহাম আবদুস সালাম

আপনারা অনেকেই অনেক ট্রলের শিকার হয়েছেন কিন্তু রসূলের সমান ট্রলিং আমাদের মধ্যে প্রায় কেউই শিকার হন নি।RAB মারফত গুম না হয়ে থাকলে আপনি তার সমান অত্যাচারের স্বীকারও হন নাই। তার সমান অপমান ও অত্যাচারের শিকার হয়েছেন এমন মুসলমান আজকের দিনে আছে – তবে খুব বেশী নাই মনে হয়।

তিনি তার নিজের অবমাননাকারীদের হত্যার প্রয়োজন বোধ করেন নাই। আপনারা কেন – এটাকে জাস্টিফায়েড মনে করেন?

কেন আপনারা মনে করতে পারেন না আজকের কোরান অবমাননাকারী কালকে রসূলকে ভালোবাসতেও তো পারতো।

কেন নাস্তিকদের প্রতি আপনাদের ঘৃণা?

ধরলাম যে লালমনিহাটের সেই ছেলেটা কোরান ছিড়ে ফেলেছে। তো কী ক্ষতি হয়েছে কোরানের? কিন্তু অসহিষুতার ব্যাপারে মুসলমানের যে এক্সেপ্টেন্স – এটা ভয়ঙ্কর আকার ধারণ করছে।

ফ্রান্সের হত্যাকাণ্ডে পার্টিসিপেট করেছে হয়তো দুইজন কিন্তু একটা নিরাপরাধ মানুষকে ইসলামের নামে মেরে ফেলাকে সাপোর্ট করা মানুষ মোটেও ২ জন না – সেটা লক্ষ লক্ষ।

এই অসহিষ্ণুতা আমি ফেইসবুকে রোজ দেখি। মন ভেঙে যায়। অসহায় লাগে। একটা মানুষকে আপনি ঘৃণা করছেন – যার একমাত্র অপরাধ সে নাস্তিক। এই মানসিকতায় পৌঁছাতে কতদিন লাগে – জানতে ইচ্ছা করে আমার।

রাসূলের অপমানে মন কাঁদে অথচ একটা নিরপরাধ মহিলার গলা কাটায় মন কাঁদে না – এমন উম্মতের জন্যেই কি আমার রাসূল রাতভর কেঁদেছিলেন?

আমি জানি আপনি আমাকে কী বলবেন? আপনি ওভার-সিমপ্লিফাই করছেন – ওয়েস্টের এপোলজিস্ট – এইসব আমার শোনা আছে – জানি।

একটা কথা নিজে নিজে চিন্তা করেন। আপনার মনে ভালোবাসা বেশী না রাগ বেশী। রাসূলের প্রতি আপনার যে ভালোবাসা – এমন তো না যে রাসূল-অবমাননাকারীর প্রতি ঘৃণা তার চেয়ে বেশী?

ভাই হৃদয় জায়গাটা ছোটো। এই হৃদয়ে এতো ঘৃণা ভরলে – ঐখানে ভালোবাসার জায়গা থাকে না। রসূলের জীবন ছিলো ভালোবাসার জীবন। সেই কারণেই তিনি সার্থক। তখনো ছিলেন – এখনো আছে।

তাকে সেইদিনও মানুষ গালি দিয়েছে – এখনো দেয়। তো হয়েছেটা কী?

আপনি যদি তাকে ভালোবেসে তার শিক্ষা জীবনে ইমপ্লিমেন্ট করতে পারেন – তাহলে তাকে গালি দেওয়া মানুষটাও একদিন তার ভুল বুঝবে – এই বিশ্বাস যদি আপনার মধ্যে না থাকে – আপনি সম্ভবত রসূলকে চিনতেই পারেন নি।

নাস্তিকের মুখ বন্ধ করার চেয়ে – নাস্তিকের হৃদয় জয় করাটা সহজ – কবে বুঝবেন আপনারা – হায়?

ঘৃণার জাহেলিয়া থেকে আল্লাহ আপনাদের রক্ষা করুন।

উৎস । তারিখ: 2020-10-30 06:02:50

26 thoughts on “রসূলের সমান ট্রলিং আমাদের মধ্যে কেউ শিকার হয় নাই – ফাহাম আবদুস সালাম”

  1. What is all this propaganda of Muhammadans all over fb by thousands of ignorant Muhammad worshipers ????

    Wow they challenge God and go against His word in the Quran alone😱

    And this propaganda start with this : “I protest against direspect of our beloved prophet Muhammad (pbuh)'”

    -First
    The Quran teaches us to respect the prophet while he is alive (49:2, 24:62). Once he is dead, we can no longer respect him, but we can respect and obey the message he brought up, the living messenger. If we truly respect the prophet, we must follow the message that he received from God Almighty, Quran. Unfortunately, millions of Muhammadans all over the world are expressing their respect to the dead prophet Muhammad through idolizing him a practice that is contrary to the teachings of the Quran .

    [Quran 3:79] Never would a human being whom God, blessed with the scripture and prophet hood say to people, “Idolize me beside God.” Instead, he would say, “Devote yourselves absolutely to your Lord alone,” according to the scripture you preach and the teachings you learn.

    The love and respect to any messengers should be only through the love and the respect of the message they delivered, and the scripture they brought up. When God’s messengers are dead, the only living messenger we have to love and respect would be the Scripture, the infallible word of God. God’s choice of the word “messenger” in the following verse, 9:24, is very precise and deliberate. God didn’t mention the name Muhammad instead of “his messenger” for us to love, but rather He chose to leave it as general as “His messenger”. God does not err or run out of words. He specifically chose “His messenger” knowing that His prophet will be dead, and all what we need to love besides God is His living Messenger : The Quran.

  2. অনেক ভালো বলেছেন! দিন দিন এসব অসহিষ্ণুতা দেখে ভাবি মুসলমান হিসেবে আমরা রাসুলের আদর্শ আসলে কতটা অনুসরণ করি!!

  3. রাসুল (সা.) এর নামে কিছু লিখার আগে কিছুটা যাচাই বাছাই করে লিখলে ভাল হতো যেহেতু আপনার লিখা অনেকেই পড়ে। আপনার নিজস্ব নৈতিকতা জাস্টিফাই করতে গিয়ে রাসুল (সা) এর নামে মিথ্যাচার করে উনাকে মহানুভব প্রমাণ করার দরকার নাই উনি মহানুভাব প্লাস জ্ঞানীও বটে। আপনার পোস্টে লিখলেন ‘রাসুল (সা) তার নিজের অবমাননাকারীদের হত্যার প্রয়োজন বোধ করে নাই’ এটা মিথ্যাচার। একাধিক হাদিস অনুযায়ী রাসুল সা. কখনো তার সাহাবীদের( রা.) গুপ্তচর হিসেবে প্রেরণ করেছেন তার অবমাননাকারীকে হত্যা করার জন্য (বুখারি-৪০৩৮,৪০৩৯, সিরাত ইবনে হিশাম ৪/২১৩) কখনো কখনো তার অবমাননাকারীদের তার আদেশ না নিয়ে হত্যার কথা শুনলেও তার অবমাননাকারীদের রক্ত মুল্যহীন বলেছেন (আবু দাউদ-৪৩৬১)
    আশা করি আপনার উদ্ধৃত বক্তব্যটি ঠিক করবেন।
    তবে অসহিষ্ণুতার জের ধরে নিরপরাধ ব্যক্তি হত্যার ব্যাপারে আমি আপনার সাথে একমত।

  4. ভাইজান তাইলে হাসিনা কেও সুযোগ দেন উনিও ত ভাল হয়ে যেতে পারে .ট্রাম্পকে স্যযোগ দেন.। এম সি কলজের রেপিস্ট দের সুযোগ দেয়া যায় -ওরা ভুল বুঝে করেছে.।

  5. সকালবেলা লেখাটা পরে খুব ভালো লাগল ভাই। রাতে পোড়ানো সেই লোকটার ছবি দেখে খুব অসহায় লেগেছে। মানুষ এতো অসভ্য বর্বর হয়। সামান্য মারধর করে আইনের হাতে তুলে দিলেও পারত।

  6. While many (most?) Muslims do not condone this violence, it does stem from the religious scriptures and holy men they hold dear. Their thin skin and ability to take offence at anything under the sun should NOT deter us from pointing out this simple fact. The problem is not France or Charlie Hebdo or Samuel Paty but the inability of Muslims to face the reality of Mohammed and Islam. They are 7th-century ideas and people that reflect the barbarity of their era. Muslims MUST come to terms with this reality. Any desire to whitewash the truth, to lie to appease, to presume silence will mollify a bully simply perpetuates the darkness we find ourselves in today. Change is never easy and those comfortable with the status quo ALWAYS react violently, we saw the same with the reformation and enlightenment in the west. Why would we presume adherents of Islam would react any differently to being challenged?

    Are we willing to say the past few centuries of progress we have experienced due to Christianity losing in the west is not worthwhile?

    Or worse are we suggesting that those raised Muslim are lesser humans and cannot possibly change when challenged?

    from: https://twitter.com/MoTheAtheist/status/1321877028942077953

  7. আপনি যাদের নাস্তিক বলছেন তাঁরা তো আদতে ইসলাম বিদ্ধেষী, কোন নাস্তিক কেই মুসলিম আঘাত করে না যতক্ষণ না সে নাস্তিক ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে,,তাছাড়া কাওকে মেরে ফেলার পক্ষে আমি না মেরে ফেলা একটা fanatic বিষয় আমার কাছে ।

  8. Sending out a huge ‘F*CK YOU’ to the Bangladeshi Muslim community for their near total silence on Lalmonirhat issue. In this day and age when everything is available on social media, the cheek of these extremists to kill and burn an innocent person like this (who’s even mentally unstable), the nerve of this community to be silently complicit in this crime and the ruling party’s total blackout on this matter IS AN AFFRONT to justice. We have let everyone believe that they will get away with such crimes and that the world will move on to the next news in a few days’ time. About time that we put a stop to this.

  9. আমি তোমার সাথে সমপূন’ এক মত।মক্কা জয় করার পড়ো সব মূতি’ গুলি পাশে রেখেই নামাজ আদায় করেছেন দয়াল নবীজি,যেন করো মনে কস্ট না লাগে,আর তাই তো তারা মুস্লমান হয়ে নিজেদের মূতি’ নিজেরাই সডিয়ে ছিল।ভালো বাসা দিয়েই ইসলাম কায়েম হয়েছে।প্রিথিবিতে একমাত্র ধর্ম, যেখানে মুস্লমান হোতে হোলে সবার সামনে শপথ করে বলতেই হবে কোন প্রয়চনায়,অথ’করিজিনিস পত্র, সব্বপরি কারো হুমকি,বা জোর জুলুমের কারণে তিনি মুস্লিম হোতে চান না।আছে প্রিথিবির আর কোন ধর্মে? নাই।তাই যা করার বুঝে শুনেই করতে হবে।এরা ইচ্ছা করেই এসব প্রয়চনা করে যাতে আমাদের বেদনাম করা যায়। তার পড় বাহানা করে তার থেকে ফয়দা লুটে।🙏😭

  10. আপনি তো বড়ো বড়ো শায়খ কে ছাড়িয়ে গেছেন। আমাদের প্রিয় আব্দুর রহমান বিন সুদাইস কে ও। অনেক দিন যাবত ই মুসলিম দের উপর অত্যাচার বেড়েই চলছে। মক্কার আমার রাসূল (সাঃ) যখন বুঝাতে বুঝাতে হতাশ উনাকে উনার বংশের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে হয়েছিল। উহদ বদর খন্দকের যুদ্ধ কেনো হয়েছিলো কিংবা কাদের বিরুদ্ধে হয়েছিলো আপনার নিশ্চয়ই জানা আছে৷ ম্যাক্রনের সাথে আমাদের কি করা উচিত বলবেন কি?নবীর শিক্ষা ক্ষমা কিন্তু তাঁকে বারংবার অপমান করলে কি করা উচিত? যে পাপ করে তার সাজা অবশ্যই পাবে৷ কিন্তু রাসুল(সাঃ) এর অবমাননায় চুপ করে থাকা কি ঈমানী দায়িত্ব নাকি? I should request you please read properly about Islam and then come in media to comment..you should describe why we should do this and why should not? La ila illal lahu muhammadar Rasullah means what,? When dazzal will come then we should stop ourselves according to your opinion or should go zihad with imam mahadi please? Which one u should. And my advice is to you that when you write Rasul then selawat him/ send salutation to addressed as Sallalahu Alahissalam..boycott French should be our way of Jihad as we the Muslims are most tormented in the world either by world brutal leaders or so called media…thank you so much.

  11. আমি কোন নাস্তিক কে ঘ্রিনা করিনা। ঘ্রিনা করি হিপোক্রেসি কে। আর আমি অনলাইন এ যতো নাস্তিক এর সাথে ডিবেট করেছি এদের প্রত্যেক কেই হিপোক্রেট হিসেবে পেয়েছি। এরা নিজেরাই লজিক লজিক করে আর লজিকে হেরে গেলে ব্লক করে ভাগে। সত্য কখনও স্বীকার করবেনা এরা। এরা বাক স্বাধীনতার কথা বলে অতছ ওদের বিরুদ্ধে কিছু বললে ক্ষেপে যাবে। এরা জাজমেন্টাল হইতে নিসেধ করে অথচ নিজেরা সারাদিন ধরে ইসলামিস্টদের জাজ করতেই থাকে৷ একজন নাস্তিক সারাদিন ধরে ইসলামিস্টদের সমালোচনা করে পোস্ট দিতেই থাকে। এদের মনে হয় আর কোন কাজ নেই। ওদের বিশ্বাস নিয়ে আমার কোন মাথাব্যথা নেই। কিন্তু ভন্ডামির কারনে ওদের কে এখন খুব ঘ্রিনা করি। ইভেন এখন থেকে ওদের যেখানে পাই সেখানে মারি টাইপ এর মেন্টালিটি চলে এসেছে। ওদের অনেক নিকৃষ্ট জীব মনে হয় এখন আমার কাছে।

Comments are closed.